Featured

DIGICON- your best solution partner

Digicon Technologies Ltd is a leading outsourcing organization in Bangladesh, with an industry leading edge in the vertical of BPO and IT/ITES solutions. Through our dynamic solution mechanism, we list among our clients some of the world’s most prestigious firms and companies as well as diverse government agencies. Our company is a pioneer in paving the way for the rise of the BPO industry in Bangladesh and our experience gives us an edge in delivering an excellent customer experience. Our multinational team of experts and specialists allow us to offer a full spectrum of business process management services with a global outlook that sets us apart from the rest.

Advertisements

Digicon Technologies Limited Awarded as “Best Employer Brand Award in Bangladesh 2017”

f

One of the leading Business Process Outsourcing Companies of Bangladesh, Digicon Technologies Limited has been awarded as “Bangladesh Best Employer Brand Award, 2017” in South Asian Business Excellence Awards, 2017. This event, organized by the business organization World HRD Congress and Asian Confederation, held on 29th October, 2017 in La Meridian, Dhaka.

South Asian Business Excellence Awards honors those organizations who have played an important role in promoting strong and economic opportunities in business activities. The goal of this organization is to establish a forum to honor the person and organization who took the responsibilities for the improvement of the quality of the work by creating opportunities and recognizing the superiority of the act. The jury board was composed of respected business leaders, researchers and educators. People nominated from South Asian countries (India, Sri Lanka, Bangladesh, Pakistan, Afghanistan, Bhutan, Nepal and Maldives) have been rewarded for this prestigious award.

After establishing as a Business Process Outsourcing company, since 2010, Digicon Technologies Limited has currently serving more than 24 companies including 24 telecommunication companies, Automobile, Pharmaceuticals and VAT online project of National Board of Revenue.  With more than 1300 skilled workers Digicon is operating 24 x 7 advanced customer service. DIGICON is also well known for recruitment and training of manpower, pay roll management, social media management, digital marketing, verity of back office support and information & technical services.

Wahidur Rahman Sharif, President Bangladesh Association of Call Center & Outsourcing (BACCO), Managing Director Digicon Technologies Ltd.

Wahidur Rahman Sharif is the founder and Managing Director of Digicon Technologies Ltd. since its inception (2010). He started Digicon Technologies Ltd. as one of the first BPO Companies in Bangladesh with a vision to provide unparalleled expertise and cost effectiveness to existing business processes with a mission to deliver solutions through right sets of people and technologies to ensure maximum value for business.
Educated on MIS at University of Texas (Arlington), Wahidur launched his career as Manager, MIS, and Administration in Placemark Investments, an Envestnet’s portfolio consulting group, located at Addison, Texas. He later joined as Managing Partner Impetus Consulting, where his fields of experience span from hard core technology disciplines to sophisticated financial management. Under his leadership, Digicon Technologies was awarded the ‘ICT Achievement Award’ at the Digital World 2015 in Dhaka.
Wahidur is also one of the co-founder and Managing Director of Digicon Global Services Limited and Tahoe Communications Ltd. At the same time he is serving as the President of Bangladesh Association of Call Center & Outsourcing (BACCO), as well as member of FBCCI, BASIS & AmCham (American Chamber of Commerce in Bangladesh).

Bangladesh has emerged as an important player in the BPO sector. What are the future possibilities for this industry?
The possibilities of the BPO sector are immense. We must be ready to grasp the opportunities that are being presented to us. These opportunities are arising as our competitors in India, Philippines and Sri Lanka are facing resource constraints. However, we currently don’t have this problem. We have demographic dividends that means we have huge number of youthful workers. We will have this advantage for the next 15 to 20 years. This is a vital point for the BPO industry, a situation India enjoyed during the late 80s and early 90s. If we are able to use this young resource pool along with the government policy support and extended support from the local industries we should be fine.

“THE POSSIBILITIES OF THE BPO SECTOR ARE IMMENSE. WE MUST BE READY TO GRASP THE OPPORTUNITIES THAT ARE BEING PRESENTED TO US. THESE OPPORTUNITIES ARE ARISING AS OUR COMPETITORS IN INDIA, PHILIPPINES AND SRI LANKA ARE FACING RESOURCE CONSTRAINTS.”

What are the main challenges for the BPO sector right now? 
The main challenge is that we have an abundance of young resources but we have a dearth of skilled resources. The resources we are getting from our education system are not industry friendly which means that they are not skilled enough to cope. Technical and communication skills, basic understanding of English and so on; these become major problems for us. Although training is now being offered by the ICT Division for the up-scaling of these skills, they are all time bound ad-hoc solutions. To fix this situation we have to focus on the developing their education, starting from school to university. The current crop of students will hit the job market in around 10 years so we have to take a holistic look at the teachers, students and education system and implement a proper curriculum which can help facilitate their movement from their education life to their work life.
Another challenge is capital. We need options for venture capital; however, we are still only reliant on loans from banks. The banking sector is not as welcoming towards the IT industry as it should be. Our industry is not asset based as we consider our main asset to be manpower. We cannot run under mortgages. Therefore, we have to go to the banks for finances. We look at the situation in the RMG sector where they had policy support through back to back LC, cash incentives and so on. Therefore, we think the growing IT sector also needs that support. Cash incentives and tax incentives are required though we are enjoying AIT exemption. There are also VAT issues along every step. In every hand over, there are new VAT costs added so the cost is rising. We are demanding VAT exemptions it is a new industry which could thrive with this cost burden being removed.
Our labor law is industry-centric but it does not focus on knowledge workers. In India and Philippines, laws are favorable for knowledge based industries. They adapted with the times. Policy support of this kind will benefit the industry over the long run. Addressing these issues will help us grasp the opportunities properly.

What are the segments you are working on now? 
The main work is coming from telecom sector and they are very open to outsourcing. The next segment will include the multinationals and FMCGs. We are getting overseas work mainly from the USA. We have seen numerous opportunities arising in the health sector and insurance claim processing. The government sector is a huge area where we can help with citizen services. It has to come in a massive way as it will help the local industry to grow. People will get better services.

What are the policy awareness in this sector? 
The ICT policies and telecom policies are favorable. The other stakeholders such as the Finance Ministry, NBR, and Labor Ministry must also follow suit. I am personally very hopeful, in last five years the industry is progressing positively. Our growth in last the 3 years is 100%. In next three to four years our projection of growth is 80%, given we receive the right support. It is a prospective sector and the opportunities are huge. As we have huge population we have scarcity of land so we have to grow vertically. For the absorption of the people we have to grow this knowledge based sector.

“THE MAIN CHALLENGE IS THAT WE HAVE AN ABUNDANCE OF YOUNG RESOURCES BUT WE HAVE A DEARTH OF SKILLED RESOURCES.”

What is the progress of the IT Parks in the country? 
The Sheikh Hasina Software Technology Park at Jessore is close to completion. The Bangabandhu Hi-Tech City at Kaliakoir, Gazipur will be in operational in 6 months. More are under construction. The primary issue now, is to get the skilled workers and make our presence known in the international market. The delivery of services is very important. What is the value proposition of Bangladesh? Why I am different from India or Sri Lanka? What are my strengths? Sri Lanka is very good in accounting, Philippines are very good in spoken English and getting the voice based work. India is knowledge based. We have to find our own niche as well. We are good at accounting but we are getting very low end jobs. We are now targeting non-voice work like data processing and payroll processing. We are getting this work due to the competitive prices in the market. The costing of India and Sri Lanka is more than us.
This is the right time for a knowledge based IT sector. Every sector has its own phase and time limit. We have the success stories in front of us like India and Sri Lanka. The RMG sector in our country is a success story. The successful curriculums and education systems are also available for us to see. The government has to remove the hurdles so we can move forward and grow.

Wahidur-Rahman-01-1024x472@2x

যশোরের সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে চাকরি মেলা

যশোরে শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক। ছবি: সংগৃহীতযশোরে শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে আগামী ৫ অক্টোবর দিনব্যাপী চাকরি মেলা অনুষ্ঠিত হবে। মেলায় ৩০টি প্রতিষ্ঠান জনবল বাছাই করবে। এ ছাড়া সেমিনার এবং চাকরিপ্রার্থীদের সাক্ষাৎকারের প্রস্তুতিবিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে। আজ শুক্রবার বাংলাদেশ হাইটেক পার্কের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম জানান, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ চাকরি মেলার আয়োজন করেছে। ইতিমধ্যে পার্ক কমপ্লেক্সের নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। ৩৫টি প্রতিষ্ঠানকে জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এ প্রতিষ্ঠানগুলো চাকরি মেলা থেকে কর্মী নিয়োগ করবে।

মেলায় অংশ নিচ্ছে অগ্নি সিস্টেমস লিমিটেড, দোহাটেক নিউ মিডিয়া, অগমেডিক্স বাংলাদেশ লিমিটেড, এমসিসি, অন এয়ার ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, কাজি আইটি সেন্টার, ফিফোটেক, ই-জেনারেশন লিমিটেড, বাক্য, ডিজিকন টেকনোলজিস, ওয়ালটন কম্পিউটারস, ব্রিলিয়ান্ট আইডিয়াস লিমিটেড, যশোর আইটি, প্রিনিয়র ল্যাব, এনআরবি জবস, ওয়াটার স্পিড, উৎসব টেকনোলজিস লিমিটেড, সাজ টেলিকম, স্পেকট্রাম ইঞ্জিনিয়ার্স কনসোর্টিয়াম লিমিটেড, স্টেলার ডিজিটাল লিমিটেড, এম্বার আইটি লিমিটেড প্রভৃতি।

“এশিয়ার বেস্ট এমপ্লয়ার ব্র্যান্ড অ্যাওয়ার্ড২০১৭”অর্জন করলো ডিজিকন টেকনোলজিস লিমিটেড.

প্রথম পাতা / সাম্প্রতিক খবর / “এশিয়ার বেস্ট এমপ্লয়ার ব্র্যান্ড অ্যাওয়ার্ড২০১৭”অর্জন করলো ডিজিকন টেকনোলজিস লিমিটেড

“এশিয়ার বেস্ট এমপ্লয়ার ব্র্যান্ড অ্যাওয়ার্ড২০১৭”অর্জন করলো ডিজিকন টেকনোলজিস লিমিটেড

digikon“এশিয়ার বেস্ট এমপ্লয়ার ব্র্যান্ড অ্যাওয়ার্ড ২০১৭”অর্জন করলো  বাংলাদেশের অন্যতম সেরা বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ডিজিকন টেকনোলজিস লিমিটেড। গত১আগস্ট, ২০১৭, লেমেরিডিয়ান , সান্তোস, সিঙ্গাপুরেঅনুষ্ঠিতহয়েগেল “এম্প্লয় ব্র্যান্ডিং ইনস্টিটিউট – ইন্ডিয়া ” আয়োজিত “দ্বাদশ এমপ্লয়ার ব্র্যান্ডিং অ্যাওয়ার্ড২০১৭”। বিশ্বের ৩৬ টি  দেশ থেকে মনোনীত মানব সম্পদ উন্নয়নে কর্মরত ব্যাক্তি এবং নিয়োগদানকারী প্রতিষ্ঠান , যারা কর্মীদের  প্রতিভার বিকাশ, উন্নয়ন এবং ব্যাবস্থাপনায় দৃষ্টান্তমূলক অবদান রেখে যাচ্ছে তাদের নিয়ে এইবারের আসর ছিল বহুল আলোচিত।

২০১০ সাল থেকে প্রতি বছর “এম্প্লয় ব্র্যান্ডিং ইনস্টিটিউট – ইন্ডিয়া”  এই আয়োজন করে আসছেl সাইবার স্পেস এর মাধ্যমে বিশ্বের সনামধন্য এইচ. আর প্রধানরা ,বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান দ্বারা মানবসম্পদ উন্নয়নে গৃহীত পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা এবং বিচার বিবেচনা পূর্বক অভিজ্ঞ জুরিদ্বারা সর্বোচ্চ যোগ্যতা সম্পন্ন প্রতিষ্ঠানকে নিবাচিত করে থাকেন। বাংলাদেশ থেকে এই বছর ডিজিকন টেকনোলজিস লিমিটেড “এশিয়ার বেস্ট এমপ্লয়ার(নিয়োগদানকারী)ব্র্যান্ড অ্যাওয়ার্ড২০১৭” তে ভূষিত হয় l

ডিজিকন টেকনোলজিস লিমিটেড এর পক্ষ থেকে অনুষ্ঠানে অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করেন ,প্রতিষ্ঠানটির ব্যাবস্থাপনা পরিচালক , জনাব ওয়াহিদুর রহমান শরীফ l অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করে তিনি বলেন – ডিজিকন বিশ্বাস করে, যেকোনো প্রতিষ্ঠানের মূলচালিকা শক্তি তার দক্ষ কর্মী l বর্তমানে আমাদের দেশের যুব সমাজের কাছে বিসনেস প্রসেস আউটসোর্সিং ইন্ডাস্ট্রি খুবই জন প্রিয় l তাই যুবকদের মেধাকে দক্ষতায় রূপান্তরিত করতে এবং কর্মক্ষমতার সর্বোচ্চ প্রয়াস নিশ্চিত করার জন্য ডিজিকন সব সময় কাজ করে আসছে। আর বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং ইন্ডাস্ট্রিতে দক্ষ কর্মী গড়ে তুলতে পারলে শুধু কর্মীবা প্রতিষ্ঠান নয় ,সাথে সাথে দেশ ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এগিয়ে যাবে lভবিষ্যৎতেও নিজস্ব সেবার মান ধরে রাখতে ডিজিকন বদ্ধ পরিকর l

ডিজিকন টেকনোলজিস লিমিটেড ২০১০ সালে বিজনেস  প্রসেস আউটসোর্সিং প্রতিষ্ঠান হিসাবে যাত্রা শুরু করে বর্তমানে প্রায় ১৩০০ এর বেশি দক্ষ কর্মী নিয়ে , জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সরকারি এবং বেসরকারি ক্ষেত্রে নিরলস ভাবে২৪ x ৭উন্নত গ্রাহক সেবা প্রদান করে আসছে । এছাড়াও দক্ষ জনবল নিয়োগ, মানসম্মত কর্মপ্রশিক্ষণ, পেরোল ব্যাবস্থাপনা, সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট, ডিজিটালমার্কেটিং, ব্যাকঅফিসসাপোর্টসহনানারকমউন্নততথ্যএবংপ্রযুক্তিগতসেবানিশ্চিতকরছে l ISO 9001 :2008 সনদ প্রাপ্ত ডিজিকন এর সার্ভিস পার্টনার হিসেবে আছে হিন্দুজা গ্লোবাল সল্যুশন লিমিটেড , ইন্ডিয়া , KPMG এবং আর্নেস্ট এন্ড ইয়ং সহ  বিশ্বসেরা বহু কর্ম প্রতিষ্ঠান ।

বর্তমানে ডিজিকন টেকনোলজিস লিমিটেড একাধিক টেলিযোগাযোগ কোম্পানি ,অটোমোবাইল, ফার্মাসিউটিক্যালস এবং ন্যাশনাল বোর্ড অফ রেভিনিউ এর ভ্যাট অনলাইন প্রজেক্টসহ ২৪টির বেশি প্রতিষ্ঠানকে কলসেন্টার এর মাধ্যমে উন্নত গ্রাহকসেবা প্রদান করার পাশাপাশি এবং অভ্যন্তরীণ ক্ষেত্রে নিয়োজিত কর্মীর দক্ষতা উন্নয়নে বিভিন্ন অভিনব পদ্ধতি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে।